শাহিনের চিকিৎসার টাকা নিয়ে পিসিবিকে এক হাত নিলেন ‘শ্বশুর’ আফ্রিদি

খেলোয়াড়রা ক্রিকেট বোর্ডের খরচে তাদের চোটের চিকিৎসা করাবেন, এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) নাকি খরচ দেয়নি শাহিন শাহ আফ্রিদিকে।

নিজের টাকায়ই লন্ডন থেকে হাঁটুর চিকিৎসা করিয়েছেন বাঁহাতি এই পেসার। পিসিবির এমন কাণ্ডে রেগে আগুন পাকিস্তানের কিংবদন্তি অলরাউন্ডার শহিদ আফ্রিদি।

আফ্রিদির মেয়েকে বিয়ে করেছেন শাহিন শাহ। সেই হিসেবে সম্পর্কে শাহিনের ‘শ্বশুর’ হন আফ্রিদি। বরাবরই পাকিস্তানের ক্রিকেট নিয়ে সরব সাবেক এই অলরাউন্ডার এবার মুখ খুললেন জামাতার সঙ্গে বোর্ডের আচরণ নিয়ে।

শাহিন আফ্রিদি জুলাইয়ে গলেতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্ট ম্যাচে চোট পেয়েছিলেন। যার জেরে তিনি এশিয়া কাপে অংশ নিতে পারেননি।

এরপর শাহিন হাঁটুর চোটের চিকিৎসা করাতে এবং রিহ্যাবের জন্য লন্ডনে যান। কিন্তু পাকিস্তান দলের তারকা পেসারকে নিজের খরচে এই চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হয়েছিল। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড তার পাশে দাঁড়ায়নি। এমন দাবি করেছেন শহিদ আফ্রিদি।

একটি টিভি অনুষ্ঠানে শাহিনের চোট নিয়ে কথা বলতে গিয়ে শহিদ আফ্রিদি দাবি করেন, ‘শাহিন শাহ আফ্রিদি ওর নিজের টাকায় ইংল্যান্ডে গিয়েছিল। নিজের খরচে ইংল্যান্ডে থেকেছে। এখান থেকে ডাক্তারের ব্যবস্থা করেছিলাম আমি। তবে ওখানে গিয়ে ও নিজেই ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড ওর চিকিৎসার জন্য কিছুই করেনি।’

শহিদ আফ্রিদির এই বক্তব্য ক্রিকেট বিশ্বে তোলপাড় সৃষ্টি করেছে। পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক আরও বলেছেন, ‘চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করা থেকে শুরু করে, সেই খরচ দেওয়া, হোটেল রুম এবং খাবারের খরচ- সবই ও নিজের পকেট থেকে করেছে। যতদূর আমি জানি, জাকির খান (পাকিস্তান বোর্ডের আন্তর্জাতিক সফরের ডিরেক্টর) তার সাথে ১-২ বার ওর সঙ্গে কথা বলেছিল, কিন্তু ওইটুকুই।’

শাহিন আফ্রিদি যখন ইংল্যান্ডে চলে যান, তখন পিসিবির প্রধান নির্বাহী ডঃ নজিবুল্লাহ সুমরো বলেছিলেন, শাহিনের হাঁটুর চোটের জন্য বিশেষ যত্নের প্রয়োজন এবং লন্ডনে ক্রীড়াবিদদের জন্য সেরা কিছু চিকিৎসক এবং উন্নতমানের রিহ্যাবের সুবিধা রয়েছে।

সে সময় নজিবুল্লাহ সুমরোর বক্তব্য শুনে মনে হয়েছিল, পিসিবিই শাহিন শাহ আফ্রিদিকে ইংল্যান্ডে পাঠিয়েছে। কিন্তু শহিদ আফ্রিদি আসল রহস্য ফাঁস করে দিয়েছেন। অবশেষে পিসিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, তারা শাহিন আফ্রিদির চিকিৎসাবাবদ খরচ দিয়ে দেবে।

Related articles

Comments

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বাধিক পঠিত